Posts tagged ‘চোখের ছানি’

October 27, 2015

দেশে চোখের চিকিৎসার মান খুব খারাপ – খালেদা জিয়া

সংবাদ সম্মেলনে খালেদা জিয়া

সংবাদ সম্মেলনে খালেদা জিয়া

লন্ডন প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশে চোখের চিকিৎসার মান নিয়ে তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। লন্ডনের দ্যা এ্যাট্রিয়াম অডিটরিয়ামে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই অসন্তোষ প্রকাশ করেন তিনি। বেগম জিয়া বলেন, “দেশে চোখের চিকিৎসার মান অত্যন্ত খ্রাপ।”

তিনি বলেন, “দেশে চোখের চিকিৎসার মান ভালো না, তাই আওয়ামীলীগকে ক্ষমতা থেকে নামানো যাচ্ছে না। তাই গণতন্ত্র আজ খাঁচাবন্দী।” এসময় হাতের ইশারায় একটি খাঁচার আকৃতি তুলে ধরেন তিনি।

বেগম জিয়া বলেন, “আমি বাংলাদেশের ৩ বারের নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী। আপোষহীন দেশনেত্রী, অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক দলের চেয়ারপার্সন, প্রয়াত জনপ্রিয় আরজে জিয়াউর রহমানের স্ত্রী, ডেমোক্রেসি ফর মার্চ-এপ্রিল-মে-জুন-জুলাই এর অধিনায়ক, এনটিভির একজন নিয়মিত দর্শক। অথচ আমার চোখে ছানি পড়েছে। আমি কিছুই দেখতে পাই না।”

চোখে ছানি পড়ার কারণে সরকার পতন আন্দোলন সফল হয়নি উল্লেখ করে তিনি বলেন, “আমার চোখে ছানি পড়েছে, এই ফাঁকে প্রশ্ন ফাঁস হয়েছিলো। আমি দেখতে পাইনি, তাই আন্দোলন করতে পারিনি। সুন্দরবনে কয়লা বিদ্যুত কেন্দ্র করে যাচ্ছে সরকার। আমি দেখতে পাইনি, তাই আন্দোলন করতে পারিনি। গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করেছে। আমি দেখতে পাইনি, তাই আন্দোলন করতে পারিনি। মেডিকেল শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে পিটিয়েছে। আমি দেখতে পাইনি, তাই আন্দোলন করতে পারিনি। একের পর এক ব্লগার হত্যা হয়েছে। আমি তাদের রক্তাক্ত বীভৎস চেহারা দেখতে পাইনি, তাই আন্দোলন করতে পারিনি। ষোল কোটি মানুষকে অভুখ রেখে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির বেতন দ্বিগুন করেছে। আমি দেখতে পাইনি, তাই আন্দোলন করতে পারিনি। সাকা চৌধুরীর পক্ষে সামান্য ক’জন পাকিস্তানিদের স্বাক্ষি হিসেবে আসতে দেয়নি। আমি দেখতে পাইনি, তাই আন্দোলন করিতে পারিনি।”

বেগম জিয়া বলেন, “আমি যদি দেখতে পাইতাম, তাহলে একটি জামায়াত, দুইটি আন্দালিব পার্থ, তিনটি মাহি বি চৌধুরী, চারটি গোলাম মাওলা রণি, পাঁচটি কাদের সিদ্দিকী, ছয়টি অলি, সাতটি বাবু নগরী, আটটি শফি হুজুরকে সাথে নিয়ে নয় দশটি আন্দোলন করিতাম এবং এই সরকারের ক্ষমতা ছিঁড়িতাম। ক্ষমতা ছিঁড়িয়া অবসর সময়ে বসে বসে আঁটি বাঁধিতাম। আঁটি বাঁধিয়া কাওরান বাজার যাইতাম। কাওরান বাজার গিয়ে সেই আঁটিগুলি বেচিতাম। বেচিয়া লাভের টাকা থেকে ১০ পারসেন্ট আমার ছেলের জন্য লন্ডনে পাঠাইতাম। এই টাকা দিয়া সে হাত খরচ চালাইতো।”

“অথচ, সরকার ষড়যন্ত্র করে দেশে চোখের চিকিৎসার মান খারাপ করে রেখেছে। তাই আমার চোখে ছানি পড়েছে। আমি কিছুই করতে পারিনি। এনটিভির অনুষ্ঠান দেখতে পারিনি।” – বলেন তিনি।

তুলে নাও চোখের ছানি, ফিরিয়ে দাও সিংহাসন খানি - বেগম জিয়া

তুলে নাও চোখের ছানি, ফিরিয়ে দাও সিংহাসন খানি – বেগম জিয়া

এসময় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন বিক্ষুব্দ এই দেশনেত্রী। একজন জনপ্রিয় আরজে’র স্ত্রী হয়েও আপনি কেন শোনার চাইতে দেখার উপর গুরুত্ব দিচ্ছেন? এমন এক প্রশ্নের জবাবে বেগম জিয়া বলেন, “দেখুন, আমি জনপ্রিয় টিভি চ্যানেল এনটিভির একজন নিয়মিত দর্শক। আর কিছু বলতে হবে?”

দৈনিক প্রথম আলোর সাংবাদিক প্রশ্ন করেন, “ম্যাডাম, আপনিতো দূর্গা পূজার সময় মূর্তি ভাঙতে গিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে ছাত্রলীগের নেতা কর্মীদের ধরা খাওয়ার বিষয়টি এড়িয়ে গেলেন, এ ব্যাপারে আপনার মন্তব্য কী?” জবাবে খালেদা জিয়া বলেন, “ওই যে, গণধোলাই সবাই খায়, নাম হয় শুধু বিএনপির!”

প্রিয় ডট কম এর লন্ডন প্রতিনিধির এক প্রশ্নের জবাবে বেগম জিয়া অভিযোগের সূরে বলেন, “আপনারা সানিকে নিয়ে প্রতিদিন নিউজ করতে পারেন, কই ছানি নিয়েতো কোন নিউজ করলেন না!” তিনি বলেন, “শোনার চাইতে দেখা ভালো, সানির চাইতে ছানি ভালো।”

কিন্তু আপনার চোখে ছানি পড়ার সাথে গণতন্ত্রের সম্পর্ক কী? বিডিনিউজ২৪.কম এর সাংবাদিকের করা এই প্রশ্নের জবাবে বেগম জিয়া তার স্মার্টফোনের ক্যালকুলেটর এপসটি ওপেন করেন। ওপেন করে বলেন, “দেশে মোট জনসংখ্যা ১৬ কোটি। বিএনপির মোট জনসমর্থন ৩৩ পার্সেন্ট। ১৬ কোটির ৩৩ পার্সেন্টে কত হয়?” এ সময় সাংবাদিকরা নিরব থাকলে বেগম জিয়া হাসতে হাসতে বলেন, “একটাও অংক জানে না। ১৬ কোটির ৩৩ পার্সেন্টে হয় ৭৬৩ জন। এই ৭৬৩ জন হচ্ছে গণতন্ত্রের ৩৩ মার্ক। পাস মার্ক। পাস মার্কের চোখে ছানি পড়েছে। গণতন্ত্র ফেল। হিসাব বুঝা গেছে?”

সাংবাদিকরা সবাই সমস্বরে বলেন, “জ্বি ম্যাডাম, বুঝা গেছে।”

%d bloggers like this: