Archive for ‘জলসাঘর’

September 28, 2013

অপু বিশ্বাসের মেদ কমার পরও সংলাপে যাচ্ছে না বিএনপি!

নিজস্ব সংলাপদাতা :

বিএনপি কথা দিয়েছিলো অপু বিশ্বাসের মেদ কমলে সরকারের সাথে সংলাপে যাবে। কিন্তু কথা দিয়েও কথা রাখেনি বিএনপি। কেবল একটুখানি সংলাপের জন্য অমানুষিক কষ্ট সহ্য করে অনেকখানি মেদ কমিয়ে অপু বিশ্বাস আজ জিরো ফিগারে এসেছেন। অথচ বিএনপি এখন সংলাপের কথা বেমালুম ভুলে গেছে।

চলতি বছরের মে মাসের শেষের দিকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ বলেছিলেন,

“দেশের অবস্থা খুব খারাপ। একদিকে মোহাম্মদপুর বেড়িবাঁধে ফাটল ধরেছে, অন্যদিকে অপু বিশ্বাসের মেদ বৃদ্ধি পাচ্ছে। বাঁধের ফাটল আর অপু বিশ্বাসের মেদ মেরামত করার আগে এই বাংলার মাটিতে কোন সংলাপ অনুষ্ঠিত হবে না। জনগণ তা হতে দেবে না।”

মেদ কমানোর পর নায়িকা অপু বিশ্বাস

মেদ কমানোর পর নায়িকা অপু বিশ্বাস

এর প্রেক্ষিতে টানা চার মাসের চেষ্টায় অপু বিশ্বাস তার মেদ কমাতে সক্ষম হন। এ বিষয়ে ব্যারিস্টার মওদুদের আহমেদের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন,

“অপু বিশ্বাসতো বুক ডন দিয়ে মেদ কমায়নি। দেশের মানুষ আজ ঠিক মত খেতে পারছে না। দু’বেলা দু’মুঠো খেতে না পেরে অপু বিশ্বাস শুকিয়ে গেছে। এর যাবতীয় দায় সরকারকে বহন করতে হবে।”

মওদুদ আরো বলেন,

“আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসলে মানুষের পকেটে টাকা থাকে না। অভাবের তাড়নায় দেশের প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত একটির বেশি জন্মদিন পালন করতে পারেন না। একটি দেশের প্রধানমন্ত্রীর মাত্র একটি জন্মদিন, এটা এটা আমাদের জাতীয় লজ্জা।”

বিএনপির শীর্ষস্থানীয়  এই নেতা বলেন,

“বেগম জিয়া এই দেশের মেহনতি মানুষের ভাগ্যের উন্নয়নের জন্য বার বার জন্ম নিয়েছেন। অপরদিকে বাকশালী হাসিনা জন্ম নিয়েছেন মাত্র একবার। মাত্র একবার জন্ম নিয়ে কেউ মা মাটি ও মানুষের জন্য কাজ করতে পারে, এটা বাস্তবসম্মত কথা নয়। তাই দেশের মানুষ এবার বিএনপিকে ভোট দিবে।”

May 24, 2013

অনন্ত জলিল ও শাকিব খানকে চলচ্চিত্র ছাড়তে নির্দেশ দিয়েছে বিএনপি

Tareq Rahmanবিনোদন প্রতিনিধি ::

একশন হিরো অনন্ত জলিল ও রোমান্টিক হিরো শাকিব খানকে তাদের ফিল্ম ক্যারিয়ার ক্লোজিংয়ের নির্দেশ দিয়েছে বিএনপি। আজ এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু এ নির্দেশ দেন।

দুদু বলেন, “একটা বিষয় একদম ক্লীয়ার, আমাদের মহান নেতা তারেক রহমানই হবেন আগামী দিনের সেরা নায়ক। তিনি রোমান্টিক, একশন, সামাজিক, অসামাজিক, সব ধরনের চলচ্চিত্রে অভিনয় করবেন। সুতরাং অনন্ত ও সাকিবের আর অভিনয় করার প্রয়োজন নাই। কী দরকার হুদাই কষ্ট করার!”

কিন্তু তারেক রহমানেরতো মেরুর হাঁড় ভাঙা, তিনি ঠিকমত অভিনয় করতে পারবেন কিনা, এমন এক প্রশ্নের জবাবে দুদু বলেন, “এটা একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। ওয়ান ইলাভেনের সময় উঠতি বয়সী এ নায়কের উপর প্রচুর নির্যাতন করা হয়। এই নির্যাতন দেলোয়ার হোসাইন সাঈদী, সাকা চৌধুরী, কাদের মোল্লা ও গোলাম আজমও ভোগ করেননি।”

আগামী দিনের সেরা নায়ককে নিয়ে উল্টাপাল্টা কথাবার্তা না বলার জন্য দেশবাসীকে হুশিয়ার করে দেন দুদু। তিনি বলেন, “এর আগেরবার তারেক রহমান কেন্দ্রীয়ভাবে পুরো জাতিকে খাম্বা দিয়েছেন। এবার জনে জনে ধরে ধরে দিবেন। সুতরাং উনাকে নিয়ে উল্টাপাল্টা কথা বলা যাবে না।”

এ বিষয়ে দৈনিক মগবাজার যোগাযোগ করে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদের সাথে। তিনি বলেন, “তারেকের গুন্ডাবাহিনী আজ আমার পশ্চাৎদেশে আগুন দিয়েছে, জুতাপেটা করেছে। যতক্ষণ তারা এ কাজ করেছে, ততক্ষণ আমি চুপচাপ ছিলাম। তারপর সবাই মিলে আবার শহীদ জিয়ার আদর্শ বাস্তবায়নে উঠেপড়ে লাগি।”

শহীদ জিয়ার আদর্শ জিনিসটা কী? জিজ্ঞাসা করলে মওদুদ বলেন, “অ্যাঁ… শহীদ জিয়ার আদর্শ? …আদর্শ? মানে… ভ্যাঁ… ম্যা… ম্যা…”

December 31, 2012

জাতীয় পার্টিতে যোগ দিলেন আরেফিন রুমি

রুমি ও তার দুই স্ত্রী

রুমি ও তার দুই স্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

অনেক তারকাই একসময় রাজনীতির সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত করেন। আসাদুজ্জামান নূর, কবরী, মমতাজদের হাত ধরে  হাল আমলের ক্রেজ আরেফিন রুমিও রাজনীতিতে এলেন শেষ পর্যন্ত। পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের জাতীয় পার্টিতে যোগ দিয়ে নিজের রাজনৈতিক ক্যারিয়ার শুরু করলেন এ সংগীত তারকা।

আজ দুপুরে দুই পাশে দুই বৌ নিয়ে এরশাদের হাতে ফুলের তোড়া তুলে দিয়ে রাজনৈতিক ক্যারিয়ার শুরু করেন তিনি।

কিছুদিন আগে প্রথম স্ত্রীর সম্মতিতে দ্বিতীয় বিয়ে করে দারুণ আলোচিত সমালোচিত হন আরেফিন রুমি। তীব্র সমালোচনার মুখে ধৈর্য্য ধরে দু’পাশে দু’স্ত্রী রেখে পরিস্থিতি মোকাবেলা করেছেন তিনি।

নিজ দলে এরকম একজন তারকাকে পেয়ে এরশাদ জানালেন তাঁর অনুভূতি। তিনি জানান, “রুমি বেশ পরিশ্রমী এবং বলিষ্ঠ পুরুষ। সে আসল পুরুষও। তাকে দেখে এই শেষ বয়সেও আমি অনুপ্রাণিত হয়েছি।“

আরেফিন রুমির প্রশংসা করে এরশাদ বলেন, “রুমি খুব ভালো ছেলে। সে বলেছে তার দু’স্ত্রীকেও রাজনীতিতে নিয়ে আসবে। ইনশাল্লাহ দেশ এগিয়ে যাবে।“

এ প্রতিবেদক আরেফিন রুমির প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি বলেন, “অনেকে সাঈদীর মেশিনের কথা বলবেন, কিন্তু আমি বলবো এরশাদের কথা। আমরা লুইচ্চা হলেও রাজাকার না। জাতীয় পার্টিতে যোগ দিতে পেরে আমি আনন্দিত।“

এদিকে রুমির জাতীয় পার্টিতে যোগ দেয়ার পর এরশাদের মাঝে তীব্র চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে। খোলামেলা আলোচনায় এ প্রতিবেদককে বলেন, “এটা ঠিক যে বেশ কিছুকাল ধরে আমার  মেশিন বিভ্রাট দেখা দিয়েছে। অনেকে বলছে মেশিনের ওয়ারেন্টি শেষ। আমারো তাই মনে হচ্ছে। এ অবস্থায় আবার রুমি যোগ দিলো জাতীয় পার্টিতে। দেখি মেশিনটারে কোন কিছু করা যায় না কি!”

মেশিন ঠিক করা না গেলে পোর্ট্যাবল মেশিন ইউজ করবেন কি না জিজ্ঞাসা করলে তিনি উত্তেজিত হয়ে বলেন, “নাহ! ওইসব ফালতু জিনিসের নাম আমার সামনে উচ্চারণ করবেন না। এ জিনিসের কারণে আমি বিদিশাকে হারিয়েছি। আর কাউকে হারাতে চাই না।“

এসময় এরশাদের নাক ফুলে যায় এবং চোখ দু’টো ছলছল করে উঠে।

বিদিশার সাথে কোন যোগাযোগ আছে কিনা, জানতে চাইলে এরশাদ বলেন, “ওই… আরকী! মাঝে মধ্যে ফোনটোন দেয়। দিয়ে বলে, ‘অনেকদিন পর তোমার মত আরেকটা পেলাম। তোমাকে মনে পড়ে গেলো, তাই ফোন দিলাম।‘ এছাড়া অন্য কোন যোগাযোগ নাই।“

এরশাদ বলেন, “আল্লাহ পাক আমাকে অনেক কিছু দিয়েছে।  জীবন সায়াহ্নে এসে রুমি আসলো আমার জীবনে দুই বৌকে নিয়ে। আসলে… যদি থাকে নসিবে, পাছার তল দিয়ে হলেও আসিবে! উপরওয়ালার কাছে লাখো কুটি শুকরিয়া।“

April 6, 2012

সাঈদীকে গালি দেয়ার কারণে আমার বিয়ে হয়েছে – প্রভা

বিনোদন প্রতিনিধি

জনপ্রিয় মডেল অভিনেত্রী প্রভাকে কে না চেনে! তার জীবনে ঘটে যাওয়া দু:খজনক ঘটনাগুলো কে না জানে! কিন্তু আসলে কতটুকুইবা জানে? প্রভার বিয়ে নিয়ে বেরিয়েছে চাঞ্চল্যকর খবর। কী সে খবর? শুনুন প্রভার মুখে, “সাঈদীকে গালি দেয়ার কারণে আমার বিয়ে হয়েছে।”

প্রভা জানালেন, ‘কিছুদিন আগে তিনি প্রথমে সাঈদীর নাম মুখে আনেন। এরপর সাঈদীকে গালি দেন। তারপর তার বিয়ে হয়।’ এরপর আর কী হয়েছে, তা তিনি বলেননি।

এর আগে সাঈদীকে গালি দিয়ে বৃহত্তর নোয়াখালীর হাজিগঞ্জ উপজেলার মোটর মেকানিক ফজলু মিয়া লটারীর তৃতীয় পুরস্কার হিসেবে ১০ লক্ষ টাকা জিতে নেন। এরপর থেকে সারা বাংলাদেশে সাঈদীকে গালি দেয়ার প্রতিযোগিতা শুরু হয়।

ফজলু মিয়াকে অভিনন্দন জানিয়ে তাচ্ছিল্যের সুরে প্রভা বলেন, “তারতো বিয়ে হয়নি!” তিনি বলেন, “ঠিকমতো গালি দিতে না পারার কারণে ফজলু মিয়া তৃতীয় পুরস্কার জিতেছেন। নইলে প্রথম পুরস্কার জিততে পারতেন। এর আগে ঠিকমতো গালি দিতে না পারার কারণে সারাদেশে প্রচুর মানুষ অসুস্থ হয়ে যায়। আমাদের উচিৎ সহী পদ্ধতিতে রাজাকারদের গালি দেয়ার উপায় সমূহ জেনে নেয়া।”

ফজলু মিয়াকে অভিনন্দন জানালেও ক্ষেপে আছেন নাম্বার ওয়ান শাকিব খানের উপর। প্রভা বলেন, “শাকিব অনেক চেষ্টা করেও নিজের জেন্ডার কনভার্ট করতে পারছেন না। যেহেতু তার কনভার্টার কাজ করছে না, সেহেতু তার উচিত সময় নষ্ট না করে সাঈদীকে গালি দিয়ে বিয়ে করে সুখে শান্তিতে স্বামীর সংসার করে যাওয়া।”

April 3, 2012

মীরাক্কেলে অংশ নিবেন শেখ হাসিনা

মীরাক্কেল ৬ এর লোগো

বিনোদন প্রতিবেদক

ভারতীয় টিভি চ্যানেল জি বাংলার জনপ্রিয় কমেডি শো মীরাক্কেল আক্কেল চ্যালেঞ্জার ৭ এ অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ দুপুরে মন্ত্রীসভার নিয়মিত সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সভার আলোচনায় ক্রিকেটে বাংলাদেশের সাফল্য এবং সমুদ্র জয়ের বিষয় উঠে আসে। জয়ের এ ধারা বজায় রেখে ভবিষ্যতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী মীরাক্কেল জয় করবেন আশাবাদ ব্যক্ত করা হয়।

সভায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, “প্রধানমন্ত্রীর পাঞ্চ লাইন ডেলিভারি অসাধরণ।” তথ্য যোগাযোগমন্ত্রী আবুল হোসেন বলেন, “সবাই যেখানে দুই মিনিট গল্প বলে একটা পাঞ্চ লাইন ছাড়ে, সেখানে আমাদের প্রধানমন্ত্রী একলাইন গল্প বলে দু’মিনিট পাঞ্চ লাইন ছাড়েন।” স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন বলেন, “প্রধানমন্ত্রী মীরাক্কেলে গেলে দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নয়ন হবে। সন্ত্রাসী ও দুষ্কৃতিকারীরা তখন বসে বসে মীরাক্কেল দেখবে। দুষ্টুমি করার সময় পাবে না।”

প্রধানমন্ত্রী দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন। দেশবাসীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন “মাঝে মাঝে মনে হয় এতোদিন ধরে প্রাপ্ত ডিগ্রীগুলো এক সপ্তাহের জন্য ফেরত দিয়ে আসি। জনগণ বুঝবে ডিগ্রীহীন একটা দেশে বসবাস করা কত কঠিন!” এ সময় অর্থমন্ত্রী বলে উঠেন, “বলছি না, উনার পাঞ্চ লাইন ডেলিভারি অসাধারণ!”

প্রধানমন্ত্রীর পররাষ্ট্র উপদেষ্টা গওহর রিজভী এ প্রতিবেদককে জানান, “ম্যাডাম মীরাক্কেলে যাবার জন্য বেশ কিছুদিন যাবত অনুশীলন করে যাচ্ছেন। সাম্প্রতিক সময়ে উনি বেশ উন্নতি করেছেন। মীরাক্কেল ৭ চ্যম্পিয়ন হওয়ার বিষয়ে আমরা আশাবাদী।”

February 26, 2012

লালটিপ সিনেমাকে ক্ষমা করে দিলেন রাষ্ট্রপতি

লালটিপ সিনেমার পোস্টার

বিনোদন প্রতিনিধি

রাজীব, প্রভা এবং অপূর্বকে ক্ষমা করার পর এবার স্বয়ং লালটিপকে ক্ষমা করে দিলেন মহামান্য রাষ্ট্রপতি। রাষ্ট্রপতির অফিস থেকে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা যায় লালটিপ এসে যখন ক্ষমা চায়, রাষ্ট্রপতি তখন ক্ষমা না করে থাকতে পারেননি। তবে এসময় রাষ্ট্রপতি লালটিপ সিনেমাকে হালকা বকে দেন।

মহামান্য বলেন, “তোমরা বলেছো লালটিপ এর কথা। কিন্তু পুরো সিনেমায় লাল টপস, লাল টাইটস, লাল জুতা এমনকি লাল জাঙ্গিয়াও দেখা গেছে। এতো বড় বড় জিনিস বাদ রেখে ছোট্ট একটা টিপের নামে সিনেমার নাম রেখে বাংলা চলচ্চিত্রকে অপমান করেছো। আমি বকে দিলাম, এরপর থেকে আর এরকম করবা না!”

রাষ্ট্রপতি আরো বলেন, “সিনেমা দেখে বের হবার পর কোন একজন দর্শকেরও লাল টিপ এর কথা মনে থাকে না। সবার চোখের সামনে লাল টাইটস ঘোরাঘুরি করে। সিনেমার নাম ‘লাল টাইটস’ হওয়া যুক্তিযুক্ত ছিলো।” এসময় তিনি লাল টাইটসকেও মৃদু ভৎর্সনা করেন। ” নিজের নামে চলচ্চিত্রে থাকতে পারলে থাকো, নইলে বিদেয় হও!” বলেন তিনি।

এর আগে লক্ষ্মীপুরের সেই আলোচিত ‘খুনি’ এ এইচ এম বিপ্লবের আরও দুটি খুনের সাজা আংশিক মাফ করে দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি। বিপ্লব লক্ষ্মীপুর পৌরসভার মেয়র ও আওয়ামী লীগের বিতর্কিত নেতা আবু তাহেরের ছেলে।  তারও আগে গত বছরের জুলাইয়ে বহুল আলোচিত আইনজীবী নুরুল ইসলাম হত্যা মামলায় বিপ্লবের ফাঁসির দণ্ড মাফ করেছিলেন রাষ্ট্রপতি। এর কিছুদিন পরে রাজীব, প্রভা এবং অপূর্ব গিয়ে রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চাইলে তিনি ক্ষমা করে দেন।

বিপ্লব এবং তার বাবা আবু তাহেরকে বসুন্ধরা সিনেপ্লেক্সে গিয়ে লাল টাইটস সিনেমাটি দেখে আসার বিষয়ে হাইকোর্ট থেকে রুল জারির অনুরোধ জানান রাষ্ট্রপতি। তিনি মনে করেন বার বার ক্ষমা পেয়ে বিপ্লব ক্লান্ত হয়ে গেছে। তার এখন বিশ্রাম ও ভালোমন্দ খাওয়া দরকার। মুরগীর কলিজা, ডিমের কুসুম, কুসুমের রান সহ এরকম পুষ্টিকর খাবার না খেলে বিপ্লবের শরীর খারাপ করবে।

রাষ্ট্রপতি বলেন, “বিপ্লবের রং লাল, টাইটসের রংও লাল। এদেশে এখন লাল টাইটস হচ্ছে, একদিন লাল বিপ্লবও হবে।”

January 10, 2012

‘মিউচুয়াল সেক্স’ সিনেমার নায়িকা জামিনে মুক্ত

জলসাঘর ডেস্ক

গত বছর মুক্তি পাওয়া ব্লক ব্লাস্টার হিট মুভি ‘মিউচুয়াল সেক্স’ এর নায়িকা হোসনে আরা জামিনে মুক্ত হয়েছেন। এর আগে এক ছাত্রী ধর্ষন মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। অবশ্য তিনি ছাত্রী ধর্ষনের অভিযোগ অস্বীকার করেন। টুইলাইট সিরিজের সিক্যুয়াল “মিউচুয়াল সেক্স” সিনেমার নায়ক উইলিয়াম পরিমল এখন কারাগারে আটক আছেন। কেট হোসনে আরা এবং এবং উইলিয়াম পরিমল অভিনীত সিনেমাটি গত বছর সর্বাধিক আয়ের রেকর্ড করেছে।

December 21, 2011

ক্যাটরিনার কোমরে দেড় ইঞ্চি বাড়তি মাংস

ক্যাটরিনার কোমর মেরামত করছেন অক্ষয় কুমার

জলসাঘর প্রতিনিধি

এমনটি হবে কেউ আগে ভাবেনি। পরিবারের কেউই বিষয়টি টের পায়নি। ক্যাটরিনা বলেন, ‘আমার বয়ফ্রেন্ডও কখনো দেখেনি।’ কিন্তু ঠিক এ মূহুর্তে বিশাল চিন্তার কারণ কোমরের বাড়তি মাংস। বলিউডের সেক্স সিম্বল নায়িকা ক্যাটরিনা কাইফের কোমর প্রয়োজনের চেয়ে বেশি পুরু। ক্যাটরিনার ব্যক্তিগত সহকারি বলেন, “বেশ কিছুদিন ম্যাডামের কোমরটি চওড়া চওড়া মনে হচ্ছিলো। পরে মেপে দেখা যায় অপ্রয়োজনীয় দেড় ইঞ্চি নতুন মাংস জেগে উঠেছে।”

দৈনিক প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান বলেন, “এটা সলিড মাংস। চামড়া কিংবা হাঁড়ের কাঠামো নয়। ভিনা মালিকেরও এমনটি হয়েছিলো। পরে ডায়েট কন্ট্রোল করে কমাতে হয়েছে।” তিনি মনে করেন এ মূহুর্তে ক্যাটরিনাকে মানসিকভাবে শক্ত থাকতে হবে। নইলে আরো বড় ধরনের বিপদ হতে পারে।

বাংলানিউজ২৪.কম এর সম্পাদক আলমগীর হোসেন মতিউর রহমানের বক্তব্যকে উড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি বলেন, “কেবল ডায়েট কন্ট্রোল করে এ মাংস দূর করা যাবে না। এর জন্য হারবাল চিকিৎসার প্রয়োজন।” এসময় দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন এর সম্পাদক সহমত প্রকাশ করেন।

এসবকিছু নিয়ে মাথা ব্যাথা নাই বিডিনিউজ২৪.কম এর সম্পাদক তৌফিক ইমরোজ খালিদীর। তিনি মনে করেন কোমর নিয়ে সংবাদ পরিবেশনার সময় দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে হবে। মাংসের বর্ণনা দিতে গিয়ে অনেক সাংবাদিক একটু ডীপে চলে যায়। তিনি এর নিন্দা জানান এবং সরকারকে অনুরোধ করেছেন এসব বিষয়ে কড়াকড়ি বিধিনিষেধ আরোপ করতে। তিনি বলেন, “দায়িত্বজ্ঞানহীন মুক্ত মত নয়, উন্মুক্ত কোমর নয়!”

এদিকে করন জোহর পড়েছেন মহা মুশকিলে। তার অগ্নিপথ সিনেমার আইটেম সং চিকনী চামেলী গানটির নাম পরিবর্তনের দাবি করেছেন স্বয়ং তার স্ত্রী। করনের স্ত্রী বলেন, “ওই দেড় ইঞ্চি বাদ দিলে আমার কোমরটাও অনেক সরু।”

December 8, 2011

চিত্রনায়িকা ময়ূরী বিএনপিতে যোগ দিলেন

চিত্রনায়িকা ময়ুরী

নিজস্ব সংবাদদাতা

দেশের সর্ববৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপিতে সাংস্কৃতিক অঙ্গনের তারকার সংখ্যা বেড়েই চলছে। সম্প্রতি সংগীত শিল্পী রিজিয়া পারভীন এবং মনির খানের পর এবার যোগ দিলেন কামধনু নামে খ্যাত জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা ময়ূরী। আজ বিকেলে বিএনপির চীপ হুইপ জয়নাল আবেদীন ফারুকের হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে বিএনপিতে যোগ দেন এক সময়ের নাম্বার ওয়ান হিরোইন ময়ূরী।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেত্রী সৈয়দ আসিফা আশরাফী পাপিয়া । এসময় তাকে একবার নিজের দিকে, আরেকবার ময়ূরীর দিকে তাকাতে দেখা যায়।

যোগদান শেষে ময়ূরী মুখোমুখি হন দৈনিক মগবাজারের সাথে। তিনি বলেন, “যখন শুনেছি ব্যারিস্টার নাজমুল হুদার সাথে বিএনপির দূরত্ব বাড়ছে, তখন আর স্থির থাকতে পারলাম না। বলতে পারেন শুধু গল্পটা পড়েই সাইন করেছি, স্ক্রিপ্ট পড়তে হয়নি।”

ভবিষ্যতে সৈয়দ আসিফা আশরাফী পাপিয়া’র সাথে কোন সমস্যা হতে পারে কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে ময়ূরী বলেন, “এমনিতে আমরা দু’জন একসাথে মঞ্চে উঠবো না। বাকি সময় যার যতটুকু যায়গা প্রয়োজন, ততটুকু ম্যানেজ করে নিবো।”

আমরা ময়ূরীর কাছে জানতে চাই ভবিষ্যতে আর কোন চিত্রনায়িকা তাঁর হাত ধরে বিএনপিতে আসবে কিনা? তিনি বলেন, “তাতো আসবেই। বর্ষাকালে রাজনীতির মাঠ ঠান্ডা থাকে। যতো বেশি বেশি আমাদের মতো চিত্রনায়িকা বিএনপিতে আসবে, বর্ষাকালের বিএনপি ততো বেশি গরম থাকবে। বৃষ্টিতে ভিজে রাজপথে আন্দোলন করার মতো লোক কই?” এ সময় জয়নাল আবেদীন ফারুক সম্মতিসূচক মাথা নাড়েন।

December 7, 2011

‘কলাভেরি ডি’ গানটি খালেদা জিয়াকে উৎসর্গ করা!

এ প্রথম দক্ষিণ ভারতের কোন গান বাংলাদেশের কাউকে উৎসর্গ করে করা হয়েছে

তামিলনাড়ু প্রতিনিধি

হোয়াই দিস কলাভেরি ডি’ গানটি প্রথম ইন্টারনেটে লিক হয় এ বছরের ১৬ নভেম্বর। মুক্তি প্রতিক্ষীত তামিল ছবি ‘থ্রি’র গানটি লিখেছেন এবং গেয়েছেনে রজনীকান্তের মেয়ের জামাই ধানুস। তিনি এ ছবির অভিনেতা। সুর করেছেন তামিল সুরকার অনিরুদ্ধ রবিচন্দ্র।

গানটি কেবল দক্ষিণ ভারতেই নয়, পুরো ভারত জয় করে বাংলাদেশও মাতিয়ে তুলেছে। বাংলাদেশের নিবিড় সম্পর্ক আছে বলেই গানটি জনপ্রিয় হয়েছে। নাড়ির টান বলে একটা কথা আছে!

এ গানের বিষয়ে আমরা যোগাযোগ করি শিল্পী এবং অভিনেতা ধানুসের সাথে। তামিল এবং ইংলিশ মিশ্রিত গানটির অর্থ অনেকেই বুঝতে পারেনি, আমরাও না। এ বিষয়ে ধানুস বলেন, “গানের কথাগুলো বাংলাদেশের এক হতভাগ্য নাগরিকের। যিনি তার দেশের একজন নেত্রীর মনভোলানো কথায় পটে গিয়ে তার সমর্থন করে এখন ভুল বুঝতে পেরেছেন। তাই তিনি গাচ্ছেন, “হোয়াই দিস কলাভেরি ডি?” অর্থাৎ “কেন তুমি আমার সঙ্গে প্রতারনা করছো? কেন আমাকে কষ্ট দিয়ে মারছো?”

ধানুস বলেন গানটি তিনি বাংলাদেশের বিরোধীদলীয় নেত্রী খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে লিখেছেন এবং তাকেই উৎসর্গ করেছেন। মুক্তিযুদ্ধের কথা বলে দেশের অগণিত মানুষকে নিজের পক্ষে টেনে রেখেছেন, অথচ সংসার করেন দেশ বিরোধী রাজাকারদের সাথে। এজন্যই তিনি গানে বলেছেন “গার্ল স্কিন কালার হোয়াইট-য়্যু, হোয়াইট-য়্যু/হার্ট কালার ব্ল্যাক-য়্যু।” এরপর তিনি বলেছেন, “টু আইজ মীট-য়্যু, মীট-য়্যু, মাই ফিউচার ডার্ক-য়্যু!” অর্থাৎ এ নেত্রীর কথা বিশ্বাস করে ওই নাগরিক তাকে সমর্থন দেয়ার পর এখন ভবিষ্যত অন্ধকার হয়ে গেছে। নিজেকে একজন বাংলাদেশী হিসেবে পরিচয় দিতেও তিনি লজ্জাবোধ করেন।

ধানুসের দৃষ্টিতে গানটি এত জনপ্রিয় হওয়ার কারণ হলো এর সহজ শব্দ, এর অন্তমিল এবং গানটি গাওয়ার ভঙ্গিটা অনেক সাধারণ। পাশাপাশি খালেদা জিয়ার প্রসঙ্গতো আছেই।

এই গানের প্রশংসায় পুরো একটি টুইট করেছেন অমিতাভ বচ্চন। তিনি ধানুসের সঙ্গে এই গানের বদৌলতে সাক্ষাতও করেছেন। ধানুসকে আশীর্বাদ দিয়েছেন এবং তার পছন্দ সম্পর্কেও জানিয়েছেন। শাহরুখ খান থেকে শুরু করে ফখরুদ্দিন আহমেদ, শ্রেয়া ঘোষাল, মোসাদ্দেক আলী ফালু সবাই এখন ‘কোলাভেরি ডি’র ভক্ত।

ভবিষ্যতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদকে নিয়েও গান করার ইচ্ছে পোষন করেন ধানুস। তবে তিনি মুফতি আমিনীকে নিয়ে কোন গান করতে অস্বীকৃতি জানান।

%d bloggers like this: