পদ্মা সেতু নিয়ে মুখ খুললেন হিমু

মগবাজার ডেস্ক

অবশেষে পদ্মা সেতু নিয়ে মুখ না খুলে থাকতে পারলেন না হিমু। এর আগে সৈয়দ আবুলের সময়ে একবার মুখ খুলতে গেলে জোবেদা খালা তার মুখ চেপে ধরেন। আজ পদ্মা সেতু নিয়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের মন্তব্যের প্রেক্ষিতে আচমকা সে মুখ খুলে ফেলেন হিমু।

রাজধানীর একটি হোটেলে বিএনপির নেতা-কর্মীদের এক প্রশিক্ষণ কর্মশালায় মির্জা ফখরুল বলেন, “শেয়ার বাজার থেকে লুট হওয়া টাকা সরকার দুবাই পাঠিয়ে দিয়েছে। এখন মালয়শিয়াকে দিয়ে সে টাকা দুবাই থেকে এনে পদ্মা সেতুতে কাজে লাগানো হবে।” হিমু তখন চায়ে ভাপা পিঠা চুবিয়ে খেতে খেতে টিভি দেখছিলেন। মির্জা ফখরুলের কথা শুনেই ফোন করেন দৈনিক মগবাজারে।

হিমু বলেন, “মির্জা ফখরুল একটা বাটপার। বাটপার মানুষরা থেমে থেমে কথা বলে। জিয়াউর রহমান থেমে কথা বলতো। তারেক রহমান, খালেদা আজমও থেমে কথা বলে। মির্জা ফখরুলও জিয়া পরিবারের সদস্য। আয়াম ড্যাম শিওর, মির্জা তার পেগ লিমিট ক্রস করেছে। লিমিট ক্রস করলে বাটপাররা কথা উল্টো করে বলে। আসলে কোকোর পাচার করা টাকা মালয়শিয়া বিনিয়োগ করে ফেলছে কিনা, তা নিয়ে কোন ক্যারফা লেগেছে।” ক্যারফা মানে গিট্টু, যোগ করেন তিনি।

হিমু প্রায় চেঁচিয়ে আরো কয়েকটি দেশের নাম লিখে রাখতে বলেন। তিনি বলেন “সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, চীন, মালয়শিয়া, যুক্তরায্য যদি পদ্মা সেতুতে বিনিয়োগ করে তাহলে বিএনপি তার বিরোধিতা করবে। মির্জা, চৌধুরী, খান এরা সবাই বাংলা সিনেমার ভিলেন। এদেরকে বিশ্বাস করবেন না। এরা খালি খায় আর হাগে। হাগতে বসে টাকার গন্ধ শোঁকে।”

পদ্মা সেতু নিয়ে কথা শেষ হলে হিমু নিজের কথা বলতে শুরু করেন। এ সময় নিজেকে রাজনীতির বাইরে নয় উল্লেখ করে হিমু বলেন, “আমি সুপার হিরো হতে চাই না। সুপার হিরো হতে হলে ক্যান্সার হতে হয়। ক্যান্সার খুব অপছন্দের জিনিস। ক্যান্সার হলে মানুষ প্রচুর ফাউল টক করে।” পদ্মা সেতু নিয়ে আলটিমেটামও দিয়েছেন হিমু। তিনি জানিয়েছেন, “যতদিন পদ্মা সেতুর কাজ শুরু হবে না, ততদিন পর্যন্ত হলুদ জাঙ্গিয়া পরে ঘুরবো। তবে জাঙ্গিয়া প্যান্টের ভেতরে পরবো, উপরে নয়। সুপারম্যান হওয়ার কোন ইচ্ছে আমার নেই।”

2 Comments to “পদ্মা সেতু নিয়ে মুখ খুললেন হিমু”

  1. জব্বর কথা কইছেন হিমু। আমার এখন বলতে মন লইতাছে ‘হিমু তোমার ডর নাই, ছাগলরা পথ ছাড়ে নাই’

    Like

  2. হিমু ভাইয়ের কথা শুইনা মন টা জুরাইয়া গেসে… হিমু ভাইয়া যা বলেছেন তার সাথে আমার কিছু কথা যুক্ত করিলাম…
    একটি গোপন তথ্য মতে শেখ মুজিব এর অন্যতম ভআই ছিলেন শায়খ আব্দুর রাহমান। এছাড়া জানা গেছে মুজিব এর ৩০ লাখ র ৩ লাখ শহীদ এর কথাটি নিয়ে সংশয় থাকার কারনে মুজিব কইছে সুধু অর ফ্যামিলি এর কিছু মানুস মরসে। এর তিব্র প্রতিবাদ জানালে মুজিব জানান, ” পাকিস্তানি র রাজাকার রা ৩ লাখ মানুস মারসে এতা সত্য বাকি ২৭ লাখ মানুস আমি র আমার রক্ষীবাহীনি মারসি। আমার ছোট পোলা রাসেল মারসে অর বয়সী জ্ঞ্যনী বাচ্চাদের। বড় পোলায় যত ধরসন করসিল সে সব মাইয়ারে আমি নিজেই গুলি কইরা মারসি। হাসিনারে বিয়া করতে চাওয়ায় আমি হাসিনারে সুধু এক রাতের লাইগা তফায়েল এর হাতে তুইলা দিসিলাম 😛 :P”

    Like

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: