মনমোহনের সাথে খালেদার ৩ চুক্তি ও ১ সম্মতিপত্রে স্বাক্ষর

কূটনৈতিক পাকিবেদক ।। ৮ সেপ্টেম্বর ২০১১

সরকারিভাবে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিংয়ের ঢাকা সফর আশানুরূপ সফল না হলেও বেসরকারিভাবে সফলতার মুখ দেখেছে আলোচিত এ সফর। সফরের শেষ দিনে এসে ছক্কা মেরে বসলেন মনমোহন সিং এবং বিরোধীদলী নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া। মমতা ব্যানার্জীর অনিচ্ছায় তিস্তা চুক্তি আর মুক্তি পেলো না। তাতেই আটকে গেলো ট্রানজিট এবং ফেনী নদীর পানি বন্টন চুক্তি। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই যদি না হলো তবে আর কিইবা হলো!

মনমোহনের ঢাকা ত্যাগের ঘন্টা দুয়েক আগে সাক্ষাত করেন বাংলাদেশের সবচেয়ে সুন্দরী এবং জনপ্রিয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সাথে। বৈঠকে ৩টি চুক্তি ও ১টি সম্মতিপত্রে সাক্ষর হয়। প্রতিটি সাক্ষরই খালেদা এবং মনমোহন নিজ হাতে করেছেন। স্বাক্ষরিত ৩টি চুক্তি হচ্ছে ভারতীয় টিভি চ্যানেলে বিটিভির ৮টার সংবাদ প্রচার, যৌথ রং গবেষনা ইনস্টিটিউট স্থাপন এবং বাংলাদেশের বাজারে ভারতীয় জর্জেট শাড়ির শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকার নিয়ে। প্রথম চুক্তিতে ভারতের স্বার্থ সংরক্ষিত হলেও শেষের ২টি চুক্তিতে বাংলাদেশই লাভবান। খালেদা জিয়ার পক্ষে এমন দাবি করলেন একান্ত শুভাকাংখী শফিক রেহমান। স্বাক্ষরিত একমাত্র সম্মতিপত্র সম্পর্কে জানা যায়, এখন থেকে প্রতি শনি ও মঙ্গলবার ড. মনমোহন সিং তার দাঁড়িতে গোলাপী রং করবেন এবং জর্জেটের পাগড়ী পরবেন বলে সম্মতিসূচক স্বাক্ষর করেছেন।

তিস্তা চুক্তি না হওয়াতে দেশের মানুষ যখন হতাশার স্রোতে ভাসছিলো, ঠিক তখনই বেগম জিয়ার কূটনৈতিক ক্যারিশমায় সারা দেশে এখন আনন্দের বন্যা বয়ে যাচ্ছে। অবশ্য বেগম খালেদা জিয়া ক্ষমতায় থাকাকালে ভারত সফরে গিয়ে এজেন্ডাভুক্ত পানি বন্টন প্রসংগে কথা বলতে ভুলের যাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, “সে দিন কি আর এখন আছে? দিন বদলাইছে না!”

চুক্তি স্বাক্ষর শেষে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ড. মনমোহন সিং বলেন, “পশ্চিমবঙ্গে এতোদিন বাংলাদেশী টেলিভিশন দেখা যেতো না। এখন থেকে পুরো ভারতবাসী বিটিভির ৮টার সংবাদ দেখতে পারবে। পর্যায়ক্রমে বিটিভির পুরো অনুষ্ঠান সম্প্রচারের ব্যবস্থা নেবে মনমোহন সরকার।”

সাংবাদিকদের সামনে বেগম জিয়া বলেন, “মোহন কথা দিয়েছে দাঁড়িতে কালার করবে এবং জর্জেট কাপড়ের পাগড়ী পড়বে। আমি তার কথা মনের ভেতর গেঁথে নিলাম।”

এদিকে আজ সকালে আওয়ামী লীগ নেতা মহিউদ্দিন খান আলমগীর বলেছেন, “বেগম জিয়া তিস্তার পানিতে টাকি মাছ ধরার চেষ্টা করতেছেন।” এ বিষয়ে বেগম জিয়ার দৃষ্টি আকর্ষন করা হলে তিনি বলেন, “অশ্লীল মানুষের অশ্লীল চিন্তা। আমার চারপাশে টাকি মাছের অভাব নেই। তিস্তায় গিয়ে খুঁজতে হবে কেন?”

3 Comments to “মনমোহনের সাথে খালেদার ৩ চুক্তি ও ১ সম্মতিপত্রে স্বাক্ষর”

  1. ভাই জান ফন্টের সাইজ বড় করা যায় না?

    Like

    • এ দায়িত্ব আপনার। আপনি solaimanLipi Font কে ব্রাউজারের টুলসে গিয়ে প্রধান ফন্ট হিসেবে চিহ্নিত করে নেন। দেখবেন, সব বড় বড় দেখা যাচ্ছে।

      Like

  2. Taki mas!!
    Ha. .ha. . Ha. .

    Like

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: