আমিনীর মাথায় মাল উঠেছে

নিজস্ব পাকিবেদক ।। ২৪ জুলাই ২০০১১

রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলা খাওয়ার পর মুফতি আমিনীর মাথায় মাল উঠে গেছে। তিনি এখন মাল ব্যবস্থাপনায় চরম ব্যস্ত দিন কাটাচ্ছেন। সংবিধানকে ডাস্টবিনে ছুঁড়ে ফেলে দেয়ার হুমকীর অপরাধে আমিনীর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলা দেয়া হয়। এর আগে যখন হাইকোর্ট থেকে আমীনির বিরুদ্ধে রুল জারি হয়, তখনই নাক বরাবর মাল উঠে যায়। তিনি বলেছেন মেজাজ গরম হয়ে মুখ ফসকে বলে ফেলেছেন, আসলে এটা তার কলপের কথা নয়।

আজ এক সংবাদ সম্মেলনে আমিনী চ্যালেঞ্জ করে বলেছেন, ‘এ দেশে আমার মত দেশপ্রেমিক আর একজনও নেই।  দেশে একমাত্র দেশপ্রেমিকা শেখ হাসিনা এবং একমাত্র দেশপ্রেমিক মুফতী আমিনী। এ নিয়ে সংবিধানের সাথে ইসলামের কোন বিরোধ নেই।”

আমিনী আরো বলেন, “কোরআন হাতে নিয়ে রাজপথে নেমে প্রমান করেছি কোরআনকে কতটুকু মহব্বত করি। এবার সংবিধান হাতে রাজপথে নেমে প্রমান করবো সংবিধানকে কতটুকু মহব্বত করি!”

সংবিধানকে কোরআনের সাথে তুলনা করে তিনি বলেন, তার বাসায় কোরআন এবং সংবিধান পাশাপাশি থাকে। এ দুইটাক আলাদা করা যায় না। যেমন আলাদা করা যায় না আমিনী এবং ফতোয়াকে।

দেশের ইসলাম প্রিয় তৌহিদী জনতাকে সংবিধান হাতে নিয়ে রাজপথে নামার আহবান জানিয়েছেন মুফতি আমিনী। এসময় তিনি বলেন, “যার ঘরে যতটুকু সংবিধান আছে, তাই নিয়ে জিহাদে নেমে পড়ো। এবারের সংগ্রাম সংবিধানকে মহব্বত করার সংগ্রাম।”

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার সমালোচনা করেছেন মুফতি আমিনী। যে সংবিধানে বিসমিল্লাহ লেখা আছে, সে সংবিধানকে ছুঁড়ে ফেলার কথা বলে বেগম জিয়া ইসলামকে অপমান করেছেন, আল্লাহকে অপদস্থ করেছেন। এদেশের ৯০ভাগ মুসলমান জনগন বিএনপির বিচার করবে বলে দাবি করেন মুফতি আমিনী।

এসময় শেখ হাসিনার প্রশংসা করে তিনি বলেন “খালেদা জিয়ার বেশভুষা দেখলেই হিন্দি সিনেমার নায়িকার মতো মনে হয়। এ মহিলার হাতে দেশের ইসলাম নিরাপদ নয়।”

আগামী নির্বাচনে বিএনপিকে ভোট দিলে ঈমান থাকবে না বলে ফতোয়া দেন মুফতি আমিনী। সাংবাদিকদের সামনে জনগনকে উদ্দেশ্য করে মুফতি আমিনী বলেন, “দযার নবী মোস্তফার হাত ধরে আমরা কোরআন পাই। তাই রাসূলের সুন্নাহ অনুযায়ী জীবনযাপন করি। বঙ্গবন্ধুর হাত ধরে পবিত্র সংবিধান পেয়েছি, তাই বঙ্গবন্ধুর আওযামীলীগকে ভোট দেয়া প্রত্যেক মুসলমানের ধর্মীয় দাযিত্ব।”

সংবাদ সম্মেলন শেষে টুপি খুলে মাথার তুলির উপরে উঠে আসা সামান্য মাল সাংবাদিকদের দেখান। পরে খালেদা জিয়ার বিচার চেয়ে এক মুনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

One Comment to “আমিনীর মাথায় মাল উঠেছে”

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: